এনায়েতপুরে বিশ্ব মহাকাশ সপ্তাহ্ – ২০১৭ উদ্যাপিত হয়েছে


স্কুল ছাত্র-ছাত্রীদেরকে মহাকাশ বিজ্ঞান সম্পর্কে অনুপ্রাণিত করার লক্ষ্যে জাতিসংঘ কর্তৃক ঘোষিত বিশ্ব মহাকাশ সপ্তাহ্ প্রতি বৎসর ৪-১০ ই অক্টোবর, সারা বিশ্বের প্রায় ৮০টির বেশী দেশে উদ্যাপন করা হয়ে থাকে (িি.িঁহড়ড়ংধ.ড়ৎম)। যুক্তরাষ্ট্রের হিউষ্টনে অবস্থিত ওয়ার্ল্ড স্পেস উইক এ্যাসোসিয়েশন সারা বিশ্বে এই সপ্তাহ্ উদযাপনের জন্য সমন্বয় করে থাকে (িি.িড়িৎষফংঢ়ধপববিবশ.ড়ৎম)।

২০০৩ সন থেকে বাংলাদেশ এ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটি, “বিশ্ব মহাকাশ সপ্তাহ” নিয়মিতভাবে উদযাপন করে আসছে। ২০০৪ সন থেকে এর মূল অনুষ্ঠানটি ঢাকা থেকে ৮০ মাইল উত্তর-পশ্চিমে সিরাজগঞ্জ জেলার এনায়েতপুর গ্রামে নিয়মিত উদ্যাপিত হয়ে আসছে। এনায়েতপুর এখন বিশ্বব্যাপী একটি মহাকাশ গ্রাম হিসেবে পরিচিত। কারণ পৃথিবীর কোন দেশে মহাকাশ সংক্রান্ত অনুষ্ঠানে এত বিশাল ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও মহাকাশ উৎসাহীদের উপস্থিতি দেখা যায় না।

গতকাল ৭ই অক্টোবর, শনিবার, এনায়েতপুরের মহাকাশ ভবনে উদযাপিত হয়। এটি ছিল এনায়েতপুরে ,“বিশ্ব মহাকাশ সপ্তাহ” উদ্যাপনের ১৪ তম বার্ষিকী।

বৃষ্টি বিঘিœত সকালে বেলা ১১:৩০ মিনিটে এনায়েতপুর বালুর মাঠের উত্তর প্রান্ত থেকে “স্পেস র‌্যালী” বা মহাকাশ শোভাযাত্রা শুরু হয় এবং সেখান থেকে র‌্যালিটি এনায়েতপুরের বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিন করে মহাকাশ ভবন প্রাঙ্গনের অনুষ্ঠানস্থলে আগমন করে। এই ষ্ট্রীট র‌্যালীতে বিভিন্ন স্কুল থেকে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও মহাকাশ বিষয়ে উৎসুক ব্যাক্তিরা অংশগ্রহণ করেন। এতে ছাত্র-ছাত্রীরা ওয়ার্ল্ড স্পেস উইক বা বিশ্ব মহাকাশ সপ্তাহ্-২০১৭ এর ক্যাপ, ব্যাজ পরিধান করে এবং প্ল্যাকাডর্ হাতে নিয়ে এই স্ট্রীট র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করে।

বেলা ১২:০০ টা থেকে বেলা ১২:৪৫ টা পর্যন্ত মহাকাশ ভবন লনে “স্পেস আর্ট” বা মহাকাশ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় যাতে স্থানীয় বিভিন্ন স্কুল থেকে ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করে। একই সময়ে এনায়েতপুর বেড়ী বাধে,“ওয়াটার রকেট লঞ্চ কন্টেষ্ট” অনুষ্ঠিত হয়।

বেলা ১২:০০ টার সময় মহাকাশ ভবন প্রাঙ্গনে “বিশ্ব মহাকাশ সপ্তাহ্-২০১৭” এর সমাপনী অনুষ্ঠান শুরু হয় এবং বিকাল ৪:৩০ মিনিট পর্যন্ত চলে। এতে প্রায় দুই হাজার ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও মহাকাশ বিষয়ে উৎসাহী ব্যাক্তিরা অংশগ্রহন করে। অনুষ্ঠানে স্পেস কুইজ, স্পেস ডিবেট, স্পেস ড্যান্স, স্পেস ড্রামা, বিভিন্ন স্কুল থেকে আগত শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীরা মহাকাশ বিষয়ক বক্তৃতা প্রদান করেন। তবে অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষনীয় বিষয় ছিল স্পেস শ্যাটল নভোচারীদের মত স্পেস স্যুট পরে ৬ (ছয়) জন শিশু স্টেজের উপর স্পেস প্যারেড করে। পরিশেষে এই অনুষ্ঠানের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ছাত্র-ছাত্রীদেরকে পুরস্কৃত করা হয়।

ব্রাক ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থেকে প্রফেসর ড. খলিলুর রহমানের নেতৃত্বে প্রায় ২৫ জন ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষক-শিক্ষিকা বিশ্ব মহাকাশ সপ্তাহ্-২০১৭ তে অংশগ্রহন করে। এখানে তারা অন্বেষা কিউব স্যাটেলাইট নিয়ে আলোচনা ও ভিডিও প্রদর্শন করেন। তারা এতে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিপুল সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহন করতে দেখে বিস্মিত হন।

”বিশ্ব মহাকাশ সপ্তাহ্-২০১৭”এর উক্ত অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তৃতা প্রদান করেন খাজা ইউনুছ আলী বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত ভাইস-চ্যান্সেলর, অধ্যাপক ডা: হোসেন রেজা; বাংলাদেশ এ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির ভাইস-প্রেসিডেন্ট এবং ওয়ার্ল্ড স্পেস উইক এ্যাসোসিয়েশনের বাংলাদেশের জাতীয় সমন্বয়ক, এফ. আর. সরকার; ব্রাক ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. খলিলুর রহমান, কক্সবাজার পেকুয়া জেলা শিক্ষা অফিসার, জনাব আফম হাসান; এনায়েতপুর ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: আব্দুল কাদের; আই.সি.এল. স্কুলের প্রিন্সিপাল মো: ওয়াহিদুজ্জমান ওয়াহিদ; ব্রাক ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স এ- ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র সৌরভ হাসান; মহাকাশ শিক্ষা বিষয়ে ব্যাপক উৎসাহী ব্যক্তিত্ব আহম্মদ মোস্তফা খান বাচ্চু; মহাকাশ শিক্ষা বিষয়ে ব্যাপক উৎসাহী ব্যক্তিত্ব মো: সাইদুল ইসলাম প্রমুখ।

লাইক এবং শেয়ার দিয়ে পাশে থাকুন
20

Comments

comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.