জানা-অজানা ক্রিকেট-চার্লস টার্নার

চার্লস টমাস বায়াস টার্নার (ইংরেজি: Charles Turner; জন্ম: ১৬ নভেম্বর, ১৮৬২ – মৃত্যু: ১ জানুয়ারি, ১৯৪৪) নিউ সাউথ ওয়েলসের বাথার্স্ট এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার ছিলেন। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলসের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে মূলতঃ বোলারের দায়িত্ব পালন করতেন চার্লস টার্নার। তাঁকে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা বোলাররূপে গণ্য করা হয়ে থাকে।

১৮৮৭ সালের ২৮ জানুয়ারি অস্ট্রেলিয়ার হয়ে অভিষেক চার্লি টার্নারের। অভিষেক ইনিংসেই মাত্র ১৫ রানের খরচায় নেন ৬ উইকেট। ২য় ইনিংসে নেন আরও ২ উইকেট ক্যারিয়ারের ২য় টেস্টের ১ম ইনিংসে ৫ উইকেট ও ২য় ইনিংসে নেন ৪ উইকেট। পোস্টের প্রথম অংশটা মনে রাখুন, লেখাটা পড়ে যদি আপনি চার্লি টার্নারের ফ্যান হয়ে যান!তাহলে একটা আক্ষেপ জন্ম নিতে পারে এই পোস্টের শেষাংশে।

মাত্র ১৭ টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন চার্লি টার্নার। ৩০ ইনিংসে বল করেছেন ৫১৭৯টি, উইকেট সংখ্যা ১০১ এবং উইকেট প্রতি খরচ ১৬.৫৩ রান। ৫টি করে উইকেট নিয়েছেন ১১ বার ২বার নিয়েছেন ১০টি করে উইকেট। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে তাঁর ঝুলিতে আছে ৯৯৩টি উইকেট।১০২ বার ৫ উইকেট ও ৩৫ বার নিয়েছেন ১০ উইকেট। এই ছিল চার্লি টার্নারের সংক্ষিপ্ত স্ট্যাট।

এক ইনিংসে ৫ উইকেট যে কোন বোলারের স্বপ্নময়ী প্রত্যাশা। আর সেই ফর্ম্যেট যদি হয় টেস্ট তাহলেতো কথাই নেয়। সীমিত ওভারের ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা রানের তারনায় কখনো কখনো উইকেট বিলিয়ে দিলেও টেস্টের চিত্র ভিন্ন। একজন বোলারকে তার স্কিলের সর্বোচ্চ প্রযোগ করেই উইকেট নিতে নিতে হয়। এখন টেস্টে যদি কোন বোলার টানা ৬ ইনিংসে ৫ বা তাঁরও বেশি উইকেট লাভ করে তখন চিন্তা করুন তাঁর স্কিল লেভেল। বৈচিত্র্যময় ক্রিকেটে টানা ৬ ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেওয়ার বিরল রেকর্ড একজনেরই আছে!তিনি ‘চার্লি টার্নার’।

১৮৮৮ সালের ১০ ফেব্রুয়ারিতে শুরু হওয়া সিডনী টেস্ট ছিল চার্লির ক্যারিয়ারের ৩য় ম্যাচ।সেই ম্যাচের ১ম ইনিংসে নেন ৫ উইকেট এবং ২য় ইনিংসে ৭ উইকেট। ক্যারিয়ারের ৪র্থ ম্যাচ খেলেন একই বছরের জুলাই মাসে ইংল্যান্ডের লর্ডসে।লর্ডস টেস্টর উভয় ইনিংসে নেন ৫টি করে উইকেট। পরের টেস্ট ওভালে।ওভাল টেস্টের প্রথম ইনিংসে নেন ৬ উইকেট কিন্তু ২য় ইনিংসের খেলা মাঠে না গড়ানোর কারণে বোলিং করতে হয় নি চার্লিকে। ক্যারিয়ারের ৬ষ্ঠ ম্যাচ খেলেন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে। সেই ম্যাচের ১ম ইনিংসে ৫ উইকেট নিয়ে টানা ৬ বারের মত ৫ উইকেট লাভের বিরল রেকর্ডের একচ্ছত্র মালিক হন তিনি।

এবার পোস্টের প্রথম অংশে ফেরত যান দেখেন চার্লি টার্নারের টানা ৫ উইকেটের রেন্ডম চেইন শুরু হবার আগের টেস্টে অর্থাৎ তার ক্যারিয়ারের ২য় টেস্টের ১ম ইনিংসে ৫উইকেট পেলেও ২য় ইনিংসে ৪ উইকেট।
একবার চিন্তা করুন তো যদি সেই ইনিংসে আরও একটা উইকেট নিজের ঝুলিতে নিতে পারত তাহলে টানা ৮ ইনিংসে ৫ উইকেটের লাভের রেকর্ড বুকে নাম লেখাতে পারত।

তাতে কি?থাকুক না কিছু আক্ষেপ আর আফসোস। গত ১৩০ বছরে কোন বোলার চার্লিকে টপকানো তো দূরের কথা ছুঁতেও পারে নি।পোস্ট শেষ করার আগে আরও একটা তথ্য দিয়ে যায় চার্লি তার ক্যারিয়ারে মাত্র ২টি ইনিংসে উইকেট শূন্য ছিল।

লাইক এবং শেয়ার দিয়ে পাশে থাকুন
20

Comments

comments