নৈরাজ্য করলে দাঁতভাঙ্গা জবাব : নাসিম

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচন নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সংলাপ চেয়েছে, তাই সংলাপ চলছে। আমরাও চাই আলোচনার মাধ্যমে সংবিধান মোতাবেক অবাধ ও সুষ্ঠু একটি নির্বাচন। কিন্তু মনে রাখবেন, কেউ যদি নির্বাচন ঠেকানোর নামে নাশকতা ও নৈরাজ্য করে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করলে তাহলে দাঁতভাঙ্গা জবাব দেয়া হবে।

সোমবার বিকেলে সিরাজগঞ্জ শহরের বাজার স্টেশন মুক্তির সোপানে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মোহাম্মদ নাসিম।

১৪ দলের সম্বনয়ক নাসিম আরও বলেন, ২০১৪ সালে বিএনপি মাঠে ছিল না, তাই আমরা খালি মাঠে গোল দিয়েছিলাম। এবার লড়াই করেই জিততে চাই। আর বিএনপি যদি এবারও নির্বাচন বর্জন করে, তাহলে বাটি চালান দিয়েও তাদের আগামীতে আর খুঁজে পাওয়া যাবে না।

সিরাজগঞ্জে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে নাসিম বলেন, আমরা আপনাদের উন্নয়ন দিয়েছি, আসন্ন নির্বাচনে সিরাজগঞ্জের ৬টি আসনে জয়ের জন্য আপনারা আমাদের একটি করে ভোট দিন। তাহলে আগামীতে আমরা আপনাদের আলোকিত সিরাজগঞ্জ উপহার দেবো। এসময় সিরাজগঞ্জের প্রতিটি ঘরে ঘরে গিয়ে নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান তিনি।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক হাবিবে মিল্লাত মুন্না এমপি, ম.ম আমজাদ হোসেন মিলন এমপি, হাসিবুর রহমান স্বপন এমপি, তানভীর ইমাম এমপি, সংরক্ষিত নারী এমপি সেলিনা বেগম স্বপ্না, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আবু ইউসুফ সূর্য্য, কে. এম হোসেন আলী হাসান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন, পৌর মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তা, পৌর আওয়ামী লীগ নেতা হেলাল উদ্দিন, যুবলীগ নেতা আব্দুল হাকিম ও ছাত্রনেতা আহসান হাবিব খোকা প্রমুখ।

এর আগে স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ও অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না যৌথভাবে সিরাজগঞ্জে নির্মাণাধীন সরকারি শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ ও ৫ শ’ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল প্রকল্পের একাডেমিক ভবন ও দুটি হোস্টেল ভবনের কার্যক্রম উদ্বোধন করে প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি পরির্শন করেন।

এই পুরো প্রকল্পের কাজ শেষ হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর উদ্বোধন করবেন বলে সাংবাদিকদের অবহিত করেন মন্ত্রী।

উল্লেখ্য ২০২০ সালের জুন মাসে এ প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শেষ হবার কথা রয়েছে। এ ছাড়াও স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও অধ্যাপক মিল্লাত এমপি যৌথভাবে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমপাড়ে দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকা সিরাজগঞ্জের মুলিবাড়িতে একটি ট্রমা হাসপাতাল নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

তিনি সিরাজগঞ্জ শহরে বিদ্যমান ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের নাম ‌‌‌‍‌‌‌‌‍‌‌বঙ্গমাতা ‘শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব’ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল নামকরণেরও ফলক উন্মোচন করেন। পরে সিরাজগঞ্জ পৌরসভা বাস্তবায়িত শহীদ এম মনসুর আলী সড়কের উদ্বোধন এবং একটি ম্যুরাল উদ্বোধন করেন।

এসময় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সচিব জিএম সালেহ আহমেদ, সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক কামরুন নাহান সিদ্দীকা, পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী, সিভিল সার্জন ডা. কাজী শামীম হোসেন, প্রকল্প পরিচালক ডা. কৃষ্ণ কুমার পালসহ সিরাজগঞ্জ পৌর মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তাসহ জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

লাইক এবং শেয়ার দিয়ে পাশে থাকুন
20

Comments

comments