সম্ভাবনার নতুন নাম বেগমগঞ্জ গ্যাস ফিল্ড


বাংলাদেশে তেল, স্বর্ণের খনি না থাকলেও রয়েছে প্রচুর পরিমাণের গ্যাসের মজুদ। সেই গ্যাসের মজুদ থেকেই ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার গ্যাস চাহিদা মিটানো হচ্ছে। নতুন গ্যাস ফিল্ড বেগমগঞ্জ থেকে তিন নম্বর অনুসন্ধান জোন থেকে এই উত্তোলন শুরু হয়েছে। বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানি লিমিটেড (বাপেক্স) জানায় ঈদুল ফিতরের পর থেকে এই গ্যাস জাতীয় গ্রীডে সংযুক্ত করা হবে।

অনুসন্ধান কর্মকর্তারা জানান, কূপটিতে গ্যাসের প্রবাহ দেখার জন্য সেখানে আগুন দিয়ে এর প্রবাহ পরীক্ষা করা হয় এবং একটি রিপোর্ট দাখিল করা হয়। ওই রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে বাপেক্স পরিচালনা পর্ষদ প্রকল্পটি খননের উদ্যোগ নেয়। প্রকল্পের আওতায় কেয়ার্ন কর্তৃক চিহ্নিত এলাকায় ২ ডি সাইসমিক সার্ভে পরিচালনার মাধ্যমে আহরিত উপাত্ত ও নমুনা বিশ্লেষণ করে কূপ খননের স্থান চিহ্নিত করার পর প্রায় ৩ হাজার ৫০০ মিটার (সাড়ে তিন কিলোমিটার) গভীর অনুসন্ধান কূপ খনন এবং কূপ পরীক্ষণ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়।

বেগমগঞ্জের প্রকল্পটি সফল ভাবে সম্পন্ন হলে ঈদুল ফিতরের পর জাতীয় গ্রীডে গ্যাস সরবরাহ করা সম্ভব হবে। দেশের শিল্প ও বাণিজ্যিক বিকাশে, শিল্পোৎপাদন বৃদ্ধিতে, দেশের মানুষের উন্নয়নে এ গ্যাস সাহায্য করবে। পাশাপাশি কিছু এলাকায় গ্যাস সংকট নিরসনে সহায়তা করবে এই গ্যাস ফিল্ড।

বেগমগঞ্জে গ্যাস ও তেল প্রাপ্তির সম্ভাবনা দেখা দিলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের হাত ধরে এনায়েতপুরে গ্যাস উত্তোলনের কাজ শুরু করে। সেই সময় বিভিন্ন টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে তা বন্ধ থাকে এবং বর্তমান সরকারের উদ্যোগে তা আবার বেগবান হয়। শুধু তাই নয় অনুসন্ধান করা হয় আরও অনেক নতুন গ্যাস ফিল্ডের। গ্যাস সংকট নিরসনে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে সরকার। এজন্য স্থাপন করা হয় এলএনজি টার্মিনাল। বর্তমান সরকারের লক্ষ্য দেশের মানুষের উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের সার্বিক উন্নয়ন এবং এই ভিতের উপর ভিত্তি করে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ।

লাইক এবং শেয়ার দিয়ে পাশে থাকুন
20

Comments

comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.